লাভজনক ৫টি অনলাইন ব্যবসা-2022

লাভজনক ৫টি অনলাইন ব্যবসা

 

লাভজনক ৫টি অনলাইন ব্যবসা কিভাবে করবো?

লাভজনক ৫টি অনলাইন ব্যবসা
লাভজনক ৫টি অনলাইন ব্যবসা

বর্তমান সময়ে ইন্টারনেট এবং মোবাইল ফোন, কম্পিউটার সহজলভ্য হওয়ার কারণে অনেকেই ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসায় আগ্রহ প্রকাশ করেছে। আপনি চাইলে আপনার মেধা এবং দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে ঘরে বসেই অনলাইন ব্যবসা শুরু করতে পারেন। অফলাইন ব্যবসা থেকে অনলাইন ব্যবসায় মানুষের বেশি অগ্রহ থাকার মূল কারণ হচ্ছে- অফলাইনে ভালো কোনো ব্যবসা করতে গেলে বেশি মুলধনের প্রয়োজন। তবে অনলাইনে ব্যবসায় এত বেশি মুলধনের প্রয়োজন নেই। অনলাইনে এমন কিছু ব্যবসা রয়েছে যা অল্প ইনভেস্ট বা বিনা ইনভেস্ট করার মাধ্যমেই শুরু করা যায়। তো চলুন লাভজনক ৫টি অনলাইন ব্যবসা সম্পর্কে জেনে নেই।

ডোমেইন ফ্লিপিং

বর্তমানে লাভজনক ৫টি অনলাইন ব্যবসা সম্পর্কে ভাবতে হলে এটা অবশ্যই প্রথম পছন্দ থাকতে হবে। কারণ অনলাইনে সামান্য ইনভেস্টে সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসা হচ্ছে ডোমেইন ফ্লিপিং।

যেভাবে ডোমেইন ফ্লিপিং ব্যবসা শুরু করবেন

  • প্রথমে আপনি ডোমেইন হোস্টিং যেকোনো কোম্পানী যেমন: নেমচিপ,গোড্যাডি, হোস্টিংগার ইত্যাদি থেকে ডোমেইন ক্রয় করবেন।
  • ডোমেইন নেম ক্রয় করার পূর্বে আপনাকে অনেক যাচাই-বাছাই করে ক্রয় করতে হবে।
  • তারপর সেটা বিভিন্ন মার্কেট প্লেসে বিক্রি করতে পারবেন।
লাভজনক কিছু অনলাইন ব্যবসার আইডিয়া
লাভজনক কিছু অনলাইন ব্যবসার আইডিয়া

উদাহরণঃ একটি .com ডোমেইন কিনতে মাত্র ৮০০-৯০০ টাকার প্রয়োজন। এখন একজন লোক rvj .com ডোমেইন নেমটি কিনে Flippa বা dan বা sedo সাইটে বিক্রির জন্য পোস্ট করছে এবং মূল্য দিয়েছে ৫০০ ডলার। যা বাংলা টাকায় বর্তমানে ৫০,০০০ টাকার উপরে। এখন যদি কারো বা কোনো কম্পানির এই ডোমেনটি প্রয়োজন হয় তাহলে তারা এই দামে ডোমেইন নেমটি কিনে নিবে। এতে করে সে লোকটির ৪৯,০০০ টাকার বেশি লাভ হবে। এভাবে একটি ডোমেইন লাখ টাকায় ও বিক্রি হয়।

তেমনি আপনি যদি ভালো ডোমেইন নেম বাছাই করে কিছু ডোমেইন কিনে রাখেন তাহলে পরবর্তী সময়ে আপনি অনেক লাভে বিক্রি করতে পারবেন। এজন্যই ডোমেইন ফ্লিপিং কে বলা হয়ে থাকে বিনা পরিশ্রমে অনলাইনের সবচেয়ে সেরা লাভজনক ব্যবসা।

ঘরে বসে শিক্ষকতা করা

এটি কোনো ব্যবসার মধ্যে পড়ে না। তারপরও আপনি ঘরে বসে অনলাইনে শিক্ষকতা করার মাধ্যমে মাসে লাখ টাকার বেশি আয় করতে পারবেন।

অনলাইন থেকে টাকা আয় করার সহজ উপায় জেনে নিন

প্রথমে আপনি YouTube এ একটি চ্যানেল এবং Facebook এ একটি পেজ খুলে নিবেন। তারপর আপনি যে বিষয় ভালো পারেন সে বিষয়ে বিভিন্ন ক্লাসের পড়ার ভিডিও আপলোড করা শুরু করে দিবেন। তারপর যখন আপনার লেকচার গুলো জনপ্রিয় হতে শুরু করবে তখন আপনি ফেসবুক পেজ এবং ইউটিউব চ্যানেল থেকে মনিটাইজেশনের মাধ্যমে ভালো পরিমান টাকা আয় করতে পারেন। এছাড়া আপনার পেজ বা চ্যানেলের দর্শকদের অনলাইনে লাইভ ক্লাস করানোর মাধ্যমেও আয় করতে পারবেন। বর্তমানে অনলাইনে এমন অনেক শিক্ষক রয়েছে যারা এই প্রক্রিয়ায় মাসে কয়েক লাখ টাকার বেশি আয় করছে।

ভার্চুয়াল সহকারী

অনলাইনে ছোট-বড় অনেক কোম্পানী রয়েছে যাদের ভার্চুয়াল সহকারী প্রয়োজন হয়। যেমনঃ ডোমেইন-হোস্টিং কোম্পানীগুলোর লাইভ সাপোর্টের জন্য ভার্চুয়াল সহকারী নিয়োগ দিয়ে থাকে। যারা ২৪ ঘন্টাই তাদের সেলারদের লাইভ সাপোর্ট দিয়ে থাকে। তো আপনি একজন ভার্চুয়াল সহকারী হিসেবে অনলাইনে কাজ শুরু করে দিতে পারেন। অনলাইনে ভার্চুয়াল সহকারী হিসেবে কাজ করার জন্য অবশ্যই আপনার ইংরেজিতে দক্ষতা থাকা লাগবে। আর একজন ভার্চুয়াল সহকারীর মাসিক বেতন ৩০,০০-৩৫,০০০ পর্যন্ত হয়ে থাকে। তবে বাংলাদেশে এর পরিমাণ কম হতে পারে।

ওয়েবসাইট বিক্রি

আপনি ডোমেইন-হোস্টিং এবং থিম কিনে ওয়েববাইট তৈরি করে সেটা বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে বিক্রি করতে পারেন। আবার আপনি বায়ারের জন্য ওয়েবসাইট তৈরি করার মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিংও করতে পারেন। তো এই জব বা ব্যবসাটি করার জন্য আপনার ওয়েব ডিজাইন সম্পর্কে ধারণা থাকা লাগবে। আর ওয়েবসাইট বানানো এবং ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য YouTube এবং গুগলের সাহায্য নিতে পারেন। এটিও হতে পারে অপনার জন্য সেরা একটি লাভজনক অনলাইন ব্যবসা।

হাতের তৈরি জিনিস বিক্রি

আপনার হাতের তৈরি জিনিস অনলাইনে ভালো দামে বিক্রি করতে পারেন। আমাদের দেশে অনেক আগে থেকেই মাটি বা বাঁশের তৈরি কারুকাজ হয়ে আসছে। কিন্তু বর্তমানে এসব কারুকাজ বেশি দেখা যায় না। তো আপনি বা আপনার টিম এরকম কারুকাজ তৈরি করে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে বিক্রি করতে পারেন এবং ভালো পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

তো বন্ধুরা এই ছিল সেরা লাভজনক ৫টি অনলাইন ব্যবসা সম্পর্কে আইডিয়া। তো এরকম আরো অনলাইন ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কে জানতে আমাদের সাইটে নিয়মিত ভিজিট করুন। কোন কিছু জানার বা জানানোর থাকলে কমেন্ট করে জানাবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here