দৃষ্টিভঙ্গি বদলান তাহলে জীবন বদলে যাবে

0
112
দৃষ্টভঙ্গি-বদলান-জীবন-বদলে-যাবে

দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তনঃ

শিব খেরা‘র লেখা অনুসারে-

একবার এক বেলুন বিক্রেতা বিভিন্ন রঙের বেলুন বিক্রি করছিল। অনেক ক্রেতা সেখানে ভীড় জমাচ্ছিল। কারণ বিক্রেতার কাছে যে বেলুনগুলো ছিল তা এতো বেশি রঙিন ছিল যে শুধু বাচ্চারাই নয় বড়রাও সেগুলোর প্রতি ভীষণভাবে আকৃষ্ট ছিল। সবাই তার থেকে বেলুন কিনে উড়ানো শুরু করল। তার কাছে লাল, নীল, কালো, হলুদ, সবুজ, বেগুনী, কমলাসহ সব রঙের বেলুন থাকলেও সবচেয়ে বেশি বিক্রি হতো লাল রঙের। কারণ আমরা জানি লাল রঙের তরঙ্গ দৈর্ঘ্য বেশি। এটা বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিতে সবার নজর কাড়ার কথাই আসলে। যাইহোক কালো ছাড়া সব রং এর বেলুন প্রায় শেষ। এমন সময় এক ছোট্ট ছেলে এসে বিক্রেতাকে জিজ্ঞেস করল, “কালো রং এর বেলুন কি আকাশে ওড়ে?”
বিক্রেতা এক গাল হেসে ছোট ছেলেকে যে উত্তর দিয়েছিল তা এখনও ইতিহাস ভুলতে পারেনি।
উত্তরটা ছিল,

“বেলুন কোন রং এর সেটি বিষয় না, বেলুনের ভেতরে কি আছে সেটাই মূখ্য বিষয়।”

আসলেই তাই। বেলুনগুলো ছিল গ্যাসপূর্ণ। গ্যাস বেলুনকে উড়াতে সাহায্য করে। বেলুন যে রঙেরই হোক না কেন যদি বেলুনের ভিতরে গ্যাস থাকে তবে তা উড়বেই। কথাটি শুনে ছোট ছেলেটি একটি কালো রঙের বেলুন কিনে সবার সাথে উড়ানো শুরু করল।
আমাদের মানসিকতাও কি এমন নয়? আমরাও ঠিক এভাবে ভাবি। কারণ চাইলে সব করতে পারি কিন্তু আমরা নিজেরাই জানি না আমরা কি করতে পারব।

আমাদের মানসিকতা পরিবর্তন করা জরুরী। আমরা সবসময় ভাবিঃ
“আমার দ্বারা এ কাজ হবেনা, আমি এটা করতে পারবনা”। এই বদ অভ্যাসগুলো পরিবর্তন করাটা খুব জরুরী। হ্যাঁ খুব জরুরী।
রহিমের বাবা একজন কৃষক আর রাজিবের বাবা একজন ম্যানেজার। রাজিবের পরীক্ষার রেজাল্ট খুব ভালো আর রহিমের পরীক্ষার রেজাল্ট খুব একটা ভালো হয়নি। কারণ জানতে চাইলে রহিম বাবাকে বলে, আমরা গরীব মানুষ, আমার রেজাল্ট তো এমন হবেই। আর রাজিবের বাবা একজন ম্যানেজার, তার ছেলে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট না করলে করবে কে?
মানসিকতা এমন নিচু হলে রেজাল্ট আরও খারাপ হওয়ার কথা। মানসিক ভাবে কতটা শক্তিশালী হলে জীবনযুদ্ধে জয়ী হওয়া যায় তা সফলরাই জানে। এখানে রহিমের নিচু মানসিকতার কথাগুলো চিন্তা করে দেখুন। ধরে নিলাম, আপনি রহিমের সাথে একমত। তবে আমাকে উত্তর দিনঃ রহিমের বাবা কি রহিমের পরীক্ষার খাতায় লিখে দিয়েছিল? আর রাজিবের বাবাও কি রাজিবের পরীক্ষায় খাতায় লিখে দিয়েছিল?
আমি জানি আপনার উত্তর না।
আসুন আমরা নেতিবাচক চিন্তা বাদ দিয়ে ইতিবাচক চিন্তা করি।
লেখাগুলো ভালো লাগলে উৎসাহ দিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here